রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নির্মাণ হচ্ছে ইউনিসেফের করোনা চিকিৎসাকেন্দ্র

ভোরের টেকনাফ ডেস্ক::

করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য কক্সবাজারে বিশ্বের সবচেয়ে বড় শরণার্থী শিবিরে চিকিৎসাকেন্দ্র বানাচ্ছে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ।

২১০ শয্যাবিশিষ্ট একটি চিকিৎসাকেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। চলতি মাসের ৩০ তারিখের মধ্যে এ চিকিৎসাকেন্দ্রের সব শয্যা প্রস্তুত করার পরিকল্পনা হয়েছে। সেখানে আইসোলেশনের ব্যবস্থাও থাকবে। ওই ক্যাম্পে দু’জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ার পর গতকাল শুক্রবার ইউনিসেফের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণা দেয়া হলো।

এ জন্য ইউনিসেফের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এছাড়া এ কেন্দ্রের জন্য পাঠানো হয়েছে চিকিৎসা সরঞ্জাম।

প্রতিবেশী মিয়ানমার থেকে পালিয়ে লাখ লাখ রোহিঙ্গা কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। ২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমারে অভিযান চালায় দেশটির  সেনাবাহিনী।

মিয়ানমার সেনাদের অত্যাচার ও নির্যাতন থেকে বাঁচতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় রোহিঙ্গারা। বর্তমানে শরণার্থী শিবিরে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা বসবাস করছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা শিবিরে একজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অপরদিকে ওই ক্যাম্পের কাছাকাছি এক বাংলাদেশিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

শরণার্থী শিবিরে যারা করোনায় আক্রান্ত হবেন তাদের সেবা দিতেই নির্মাণ করা হচ্ছে ইউনিসেফের এই হাসপাতাল।


💝সংবাদটি লাইক এবং শেয়ার করুন…

শেয়ার করুন !

Daily Vorer Teknaf

সুন্দর আগামী বিনিমার্ণে একটি অঙ্গীকারবদ্ধ সংবাদ মাধ্যম। দৈনিক ভোরের টেকনাফ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *