টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে ভেসে এলো বিশাল ডলফিন

নিজস্ব প্রতিনিধি::
টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের পশ্চিম সাগর থেকে ভেসে এসেছে বিশাল আকৃতির একটি ডলফিন। ডলফিনটির কোনও নড়াচড়া না করায় সেটিকে মৃত বলে ধারণা করছেন স্থানীয় জেলেরা।
২২ জুন সোমবার বেলা ১১ টার দিকে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ পশ্চিম পাড়া সাগরে এই ডলফিনটি দেখতে স্থানীয় লোকজন ভিড় করেন। তবে এটিকে হাম্পব্যাক প্রজাতির ডলফিন বলছে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃপক্ষ।
এব্যাপারে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট কক্সবাজার কার্যালয়ের সিনিয়র সায়েন্টিফিক কর্মকর্তা ড. এহসানুল করিম বলেন, এটি ইন্দো-প্যাসিফিক বোতল নাক (হাম্পব্যাক) ডলফিন নামে পরিচিত। তবে এ প্রজাতিগুলো দলবদ্ধ হয়ে চলাফেরা করে থাকে। ধারণা করা হচ্ছে, খাবারের সন্ধানে দলছুট হয়ে ডলফিনটি শাহপরীরদ্বীপের উপকূলের কাছাকাছি এসেছে এবং আঘাত পেয়ে মারা গেছে।
তিনি বলেন, ৯-১০ ফুট উচ্চতার এই মাছটির ওজন ১৬০ কেজি হতে পারে।
স্থানীয় জেলে আবদুস সালাম বলেন, ২২ জুন বেলা ১১ টার দিকে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ সমুদ্র সৈকতে একটি মৃত ডলফিন দেখা যায়। এ সময় সেটি দেখতে লোকজন ভিড় করে। অনেককে আবার ছবি তুলতে দেখা গেছে। তবে আগের দিন সেখানে আরও একটি রক্তাক্ত প্রজাতির মাছ দেখে স্থানীয় জেলেরা, সেটিকে গভীর সাগরে দিয়ে আসে।
সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য নুরুল আমিন বলেন, শাহপরীরদ্বীপে সাগর থেকে একটি বিশাল প্রজাতির ডলফিন ভেসে এসেছে। আবার অনেকে সেটিকে তিমি মাছও বলছে। বর্তমানে সাগরে জেলেদের মাছ ধরা বন্ধ। কিন্তু কীভাবে এটি মারা গেল বলা মুশকিল। এটির কয়েকটি অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
এ ব্যাপারে টেকনাফ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন জানান, শাহপরীরদ্বীপে যে প্রজাতির ডলফিন ভেসে এসেছে। সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন !

Daily Vorer Teknaf

সুন্দর আগামী বিনিমার্ণে একটি অঙ্গীকারবদ্ধ সংবাদ মাধ্যম। দৈনিক ভোরের টেকনাফ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *