হাসপাতালে সুজাউদ্দীনকে দেখতে গেলেন সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি ও দৈনিক সমুদ্রকন্ঠ পরিবার

সন্ত্রাসী কর্তৃক হত্যাচেষ্টার পর ভাগ্যক্রমে প্রাণে বেচে যাওয়া সময় টিভি’র কক্সবাজার প্রতিনিধিকে দেখতে তার বাসায় গেলেন কক্সবাজারের বহুল প্রচারিত সমুদ্রকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক ও সাংবাদিকসহ জাতীয় দৈনিক পত্রিকার বিভিন্ন সাংবাদিকগণ এবং সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির নেতৃবৃন্দ।

গত শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করা হয় সময় টিভির কক্সবাজার প্রতিনিধি সুজাউদ্দিন রুবেল এর উপর। রুবেলকে হত্যা করতে তার শ্বাসনালী টিপে ধরে সন্ত্রাসীরা। অচেতন হয়ে গেলে মৃত ভেবে সন্ত্রাসীরা রুবেলকে ফেলে পালিয়ে যায়।
ঘটনার বিষয়ে আহত রুবেল জানান,রাত নয়টার পর অফিসের কাজ শেষ করে এসপি অফিসের সামনের রাস্তা ধরে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। সেখানে তিন-চারজন লোক তার ওপর আক্রমণ করে। তারা গলা টিপে ধরে। এসময় তিনি দুর্বৃত্তদের কাছে তাকে জানে না মারতে অনুরোধ করেন এবং টাকা-পয়সা কিছু নেয়ার থাকলে নিয়ে যেতে বলে। একপর্যায়ে তাকে গলায় চেপে শ^াসরোধ করে হত্যা করতে গেলে তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। এ সময় তাকে মৃত ভেবে দূর্বত্তরা ফেলে চলে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এই ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান আক্রান্ত রুবেল।
গতকাল রাতে আহত রুবেলকে দেখতে যান দৈনিক সমুদ্রকন্ঠের সম্পাদক ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মঈনুল হাসান পলাশ, বাংলাভিশন এর কক্সবাজার প্রতিনিধি এম আর খোকন, সমুদ্রকণ্ঠের বার্তা সম্পাদক ও সময়ের আলো পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি আমিরুল ইসলাম রাশেদ, সমুদ্রকণ্ঠের সহ সম্পাদক স্বপন দে, কক্সবাজার মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, সমুদ্রকণ্ঠের রিপোর্টার মোঃ আলমগীর, রিদোয়ানুল হক, রোস্তম রানা, দৈনিক সকালের সময় কক্সবাজার প্রতিনিধি শাহেদ ফেরদৌস হিরো, স্টাফ রিপোর্টার ও বাংলাদেশ কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম সহ আরও অনেকে।
সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির পক্ষ হতে এ জাতীয় ঘটনা রোধে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা দেয়ার দাবী জানানো হয়। একইসাথে সুজাউদ্দিন রুবেলকে হত্যার চেষ্টাকারী দূর্বৃত্তদের দ্রুত আটকের দাবী জানানো হয়।

শেয়ার করুন !

Daily Vorer Teknaf

সুন্দর আগামী বিনিমার্ণ বাস্তবায়নে এটি একটি অঙ্গীকারবদ্ধ অনলাইন সংবাদ মাধ্যম। 'দৈনিক ভোরের টেকনাফ' সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য প্রিয় পাঠকদের প্রতি অনুরোধ করা হল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *